ফ্রীলাঞ্চিং কি ? এটি কিভাবে কাজ করে?

Reading Time: 2 minutes

What is Freelancing ? How does it work?

নতুন যারা মার্কেট এ আসে বা কাজ শিখতে চায় তারা প্রথমে মার্কেট এ আসার পর বলে ফেলে আমি ফ্রিলান্সিং করতে আসছি। সে হয়তো জানে ফ্রিলান্সিং মানে অনেক টাকা শুধু একাউন্ট খুলবো আর টাকা কামাবো! আসলে ফ্রিলান্সিং এমন নয়।

তাহলে ফ্রিলান্সিং জিনিস টা কি?

সহজ কথায় বলতে গেলে আপনি যখন অন্যের কাজ করে দিবেন সেটা হতে পারে (ওয়েভ ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, এসইও, Theme Development, Theme Customize, Front end developer, Back-end Developer ইত্যাদি। এগুলো সবই ফ্রিলান্সিং এর একটি মাধ্যম।

আপনাকে যেকোনো একটি বিষয়ে পারদর্শী হতে

হবে। আপনি যখন আপনার বিষয়ে এক্সপার্ট হবেন

তখন আপনি আপনার কাজের বিনিময়ে টাকা পাবেন। যদি সঠিক কাজ করে না দিতে পারেন তাহলে ক্লায়েন্ট আপনাকে পেমেন্ট দিবে না।

তাহলে আমার কি করা উচিত?

আপনাকে শুধু কাজ শিখে যেতে হবে। আপনার পছন্দের বিষয়টি বেছে নিন এবং সেই বিষয় এর উপর পর সময় দিন নিজেকে দক্ষ করে তুলুন।

আপনার স্কিল যত বেশি হবে তত কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি।

আমি কিভাবে কাজ শিখবো?

প্রথমত আপনি আপনার পছন্দের বিষয়টি সিলেক্ট করুন এবং অনলাইন এ রিসার্চ করুন। সবথেকে শিখার বেস্ট প্লাটফর্ম Udemy সেখান থেকে আপনি কোর্স কিনে শিখতে পারেন অথবা আপনি ইউটিভব থেকে শিখতে পারেন।

আমি মোবাইল দিয়ে ফ্রিলান্সিং করতে চাই আমি কি করতে পারবো?

মেবাইল দিয়ে আপনি চেষ্টা করলে কাজ শিখতে পারবেন তবে ফ্রিলান্সিং করতে হলে লেপটপ বা কম্পিউটার বেস্ট । আপনি ওয়েভ-ডিজাইন শিখতে চাইলে W3schools আপনার জন্য বেস্ট। এখানে অনেক ফ্রেমওয়ার্ক রয়েছে আমি এগুলো শিখে এক্সপার্ট করে তুলতে পারবেন নিজিকে। সবক্ষেতে আপনি মোবাইল দিয়ে ফ্রিলান্সিং করতে পারবেন না। আপনি যদি কনটেন্ট রাইটার হন তাহলে আপনি অনায়াসে কনটেন্ট রাইটিং এর কাজ মোবাইল দিয়ে করতে পারবেন তবে আমি আগেই বলেছি লেপটপ বা কম্পিউটার বেস্ট । আপনি যদি ওয়েভ-ডিজাইন ও শিখেন আপনার HTML&CSS শিখতে ৩ মাস এর মত লাগতে পারে।

কন্টেন্ট রাইটিং কিভাবে করে?

সবক্ষেত্রেই একজন Content Writer প্রয়োজন হয়। আপনি নিশ্চই সকালে ঘুম থেকে উঠে নিউজ পেপার পড়েন । পত্রিকা গুলোর মাঝে লেখা থাকে এগুলা ও এক একটা Content. আপনি ত আর প্রত্রিকার content লিখবেন না। বর্তামানে এরকম হাজার হাজারর প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেগুলো আপনাকে অফার করবে ইংরেজিতে বিভিন্ন বিষয় লেখালেখি করার এর বিনিময়ে আপনি অনেক টাকা কামাতে পারেন। আপনি ফাইবার, আপওয়ার্ক, ফ্রিলান্সার, পিপল পার আওয়ার এছাড়া বর্তমানে অনেক মার্কেটপ্রেল্স বাজারে রয়েছে আপনার শুধু একাউন্ট করতে হবে এবং আপনার Portfolio দেখাতে হবে।

Portfolio কিভাবে করতে পারি?

আপনাকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনতে হবে।

যদি আপনি আপনার নাম বা কোন কিছু ব্যান্ড করতে চান তাহলে ঐ নামে একটি ডোমেইন হোস্টিং কিনতে পারেন। আপনি ইচ্ছা করলে Namecheap অথবা Bluehost থেকে Domain and hosting কিনতে পারেন। ডোমেইন হোস্টিং কিনার পর আপনাকে একটি ওয়েভসাইট তৈরি করতে হবে। ফ্রী Portfolio Website করতে এই ভিডিওটি দেখতে পারেন।

কিভাবে কাজ পেতে পারি মার্কেটপ্রেল্স এ?

আমি আপনাকে ফাইবার এ একাউন্ট খুলার পরামর্শ দিবো । এই লিংক এ গিয়ে ফাইবার এ একাউন্ট খুলুন অথবা ফাইবারে ঘুরে আসুন এবং কি ধরণের কাজ রয়েছে সেগুলো দেখুন। একাউন্ট খুলার পর আপনি গিগ তৈরি করুন। আপনি যেই বিষয় জানেন সেই বিষয় এর উপর গিগ তৈরি করুন। আরেকটা বিষয় ফাইবার একাউন্ট খুলার আগে আপনি ফাইবার এর কেটাঘরি গুলো ফলো করুন । আপনি যেই বিষয়ে একপার্ট সেই বিষয়ে সেখানে সার্চ করুন Example (content writer)

আপনি অনেক গিগ দেখতে পাবেন। সেরকম করে আপনি একটি ইউনিক গিগ তৈরি করুন। কারো লেখা কপি করে হুবুহু দিতে যাবেন না ঘুরিয়ে ফিরে লেখুন। প্রতিদিন নিজের স্কিল বৃদ্ধি করুন। আপনার মার্কেটপ্রেল্স ভালো নিজে নিজের ওয়েভসাইট এ কন্টেন্ট লিখুন। আর একটা বিষয় কেউ আপনাকে ভালো বললে অনেক খুশি হতে যাবেন না। ঠিক ক্লায়েন্ট যখন নক করবে কম কথা বলে তাকে সবকিছু বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করুন। তিরি কি লিখেছে ঐটার পরিপেক্ষিতে আনসার করুন। আপনি শুধু ফাইবার না যেকোনো মার্কেটপ্লেস এ কাজ শুরু করতে পারেন। পরে হয়তো আরো লিখবো।

ধন্যবাদ সবাইকে।

1 Comment

Leave a reply

Logo